খালেদা জিয়ার ঈদের আগেই জামিন ও মুক্তি পাবে?

৩৬ মামলার আসামি ও দুর্নীতির দু’টি মামলায় সাজা পাওয়া বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে মতপার্থক্য রয়েছে তাঁর আইনজীবীদের মধ্যেই। একপক্ষ বলছে, সরকারের সদিচ্ছা ছাড়া মুক্তি সম্ভব নয়।

আর, অন্যপক্ষ বলছে আইনি প্রক্রিয়ায় ঈদের আগেই মুক্তি পাবেন খালেদা জিয়া। মুক্তি পেতে দরকার শুধু চার মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন।
দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে ৩৬টি। এরমধ্যে গ্যাটকো, নাইকোসহ বিচার চলছে ১৩টি মামলার।
খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন সিএনএন বিডি ২৪.কমকে বলছেন, চারটি মামলায় জামিন হলেই মুক্তি মিলবে খালেদা জিয়ার। সেই সঙ্গে, ঈদের আগেই জামিন ও মুক্তির আশা তার।
তিনি বলেন, আমরা অধিকাংশ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন করিয়েছি। দুইটি মামলায় এখন তার জামিন বাকি আছে। আর অন্য যে দু’টি মামলার জামিন বাকি আছে সেগুলো জামিন যোগ্য হওয়ায় আমরা খুব বেশি গুরুত্ব দেইনি। এখন দেশের সর্বোচ্চ আদালত যদি বিচারিক মনোভাব নিয়ে মামলাগুলো দেখেন তাহলে খুব দ্রুতই আমরা এই মামলাগুলো থেকে জামিন পাব।
তবে, সরকারের সদিচ্ছা ছাড়া খালেদা জিয়াকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করা সম্ভব নয় বলে মনে করেন, সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।
তিনি সিএনএন বিডি ২৪.কমকে বলেন, আইনি প্রক্রিয়ায় খালেদা জিয়া জামিনে মুক্ত হবেন এটা একটা অবাস্তব কথা। কেননা, বর্তমানে আমাদের দেশে বিচার ব্যবস্থার যে অবস্থা তাতে, যে পর্যন্ত না সরকারের সদিচ্ছা হবে তাঁকে মুক্তি দেয়া। ততদিন পর্যন্ত তিনি জামিন পাবেন না।
খন্দকার মাহবুব হোসেন আরও বলেন, আমরা একটি মামলায় জামিন নেব। পরে, তাঁর বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা দায়ের করা হবে। এভাবেই তাঁর কারাজীবন দীর্ঘায়িত করা হবে।
দুর্নীতি দু’টি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার আপিল শোনার পাশপাশি বিচারিক আদালতের নথি তলব করে দুই মাস সময় বেঁধে দিয়েছে।
এদিকে, গত ১লা এপ্রিল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। সুস্থ্য হলেও এবং মুক্তি না মিললেও নাজিম উদ্দিন রোডের অস্থায়ী কারাগারে নেয়ার সম্ভবনা কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *